আজ ১০ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

ফেনী শহরের আবাসিক হোটেল গুলোতে মাদক, জুয়াসহ চলছে রমরমা দেহ ব্যবসা,ধ্বংসের মুখে তরুণ সমাজ

হাসনাত তুহিন ফেনী জেলা প্রতিনিধিঃ-

ফেনী জেলা সদরে অবাধে চলছে রমরমা দেহ ব্যবসা। আর এই দেহ ব্যবসায় ঝুঁকে পড়ছে তরুণ সমাজ।

অনুসন্ধানে জানা যায়, ফেনী শহরে বিভিন্ন স্থানে বাণিজ্যিকভাবে গড়ে উঠেছে শক্তিশালী যৌন ব্যবসা। সে সঙ্গে ফেনী সদরে প্রতিনিয়তই বিপুল পরিমাণের যৌনকর্মীদের চাহিদার যোগান দিতে এখানে আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে যৌনকর্মীদের সংখ্যাও।

সরেজমিনে ফেনী শহর ঘুরে জানা গেছে, এক শ্রেণীর অসাধু ব্যক্তিরা যুবতী নারীদের দিয়ে বিভিন্ন আবাসিক হোটেল ও বাসা-বাড়িতে গড়ে তোলে শক্তিশালী অবৈধ দেহ ব্যবসার নেটওয়ার্ক। ফেনী পৌরসভা ছাড়াও উপজেলার যুবতী নারীদের দৌরাত্ম্যে জিম্মি হয়ে পড়েছে যুব সমাজ। সরেজমিনে আরো জানাযায়, শহরের এস.এস.কে সড়ক,পাঠান বাড়ি সড়ক, আলকেমি হাসপাতাল সড়ক এর আশেপাশের হোটেল ও বাসাবাড়িতে চলছে জুয়া ও দেহ ব্যবসা। উল্লেখ যোগ্য জনবসতি মহীপাল সত্তরের আসেপাশে গড়ে উঠা হোটেল গুলোতে জনসম্মুখে রমরমা যৌন ব্যাবসা চলছে। এই ছাড়াও সন্ধ্যা হলে মহীপাল ফ্লাইওভারের নিছে ১৫ থেকে ২০ জন্য মহিলাকে অবস্থান করতে দেখা যায়।তারা নিম্ন শ্রেণীর মানুষের সাথে কম দামে ভাড়া করে মহীপালের আশপাশের হোটেল গুলোতে নিয়ে যায়।

ফেনী জেলায় এক শ্রেণীর দালালদের খপ্পরে পরে যৌন ব্যবসায় নেমেছেন শত শত যুবতী। তারা দীর্ঘদিন যাবত পৌরসভার বিভিন্ন স্থানের আবাসিক হোটেল ছাড়াও ঘনবসতি এলাকাগুলিতে দাপটের সাথে ব্যবসা চালিয়ে আসছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

কয়েকজন যৌন কর্মীর সাথে কথা হলে তারা সাংবাদিকদের বলেন, প্রভাবশালী দালালদের খপ্পরে পরে আমরা আজ যৌন ব্যবসায় নামতে বাধ্য হয়েছি। তারা প্রথমে আমাদের জোর করে ব্লাক মেইল করে। পরে সেই ভিডিও ফাঁস করে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে আমাদের এ পথে আনতে বাধ্য করেছে। এছাড়াও কেউ কেউ বলেন করোনার কারণে অনেক কিছু হারিয়ে দেহ ব্যবসায় নামতে হয়েছে। তারা আবার একইভাবে বিভিন্ন ছেলেদের প্রেমের ফাঁদে ফেলে নিজস্ব বাসায় নিয়ে মেয়েদের পাশে বসিয়ে ভিডিও ছবি তুলে জিম্মি করে সাথে থাকা সবকিছু হাতিয়ে নেওয়ার ও অভিযোগ রয়েছে।

এই বিষয়ে মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাছ থেকে জানতে চাইলে তিনি জানান, জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় সকল প্রকার পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

স্থানীয় লোকজন ও সুশীল সমাজ আভিযোগ করে বলেন, এই যৌন ব্যাবসার কার্যকর ব্যবস্থা না নিলে আগামীতে ফেনীতে অবৈধ জুয়া ও যৌন প্রবণতা মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়বে তখন কন্ট্রোল করা সম্ভব হবে না। জুয়া ও যৌন ব্যবসা বন্ধের জোর দাবি জানান পুলিশ প্রশাসনের প্রতি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এই বিভাগের আরও খবর..

ফেসবুকে আমরা

Facebook Pagelike Widget