আজ ৩০শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৪ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

মহামারি ঠেকাতে ভারতে ‘করোনা দেবী’র পূজা!

ভারতে করোনাভাইরাস জনিত পরিস্থিতি দিন দিন খারাপ হচ্ছে। আক্রান্তের সংখ্যার দিক দিয়ে এরইমধ্যে শীর্ষ ৫ এর তালিকায় অবস্থান করছে দেশটি। করোনার এমন পরিস্থিতিতে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের মানুষের অন্ধ বিশ্বাস ভর করতে শুরু করেছে। এরইমধ্যে পশ্চিমবঙ্গ, আসাম ও বিহারের কিছু মানুষ ‘করোনা দেবী’র নামে পূজা শুরু করেছেন। গ্রামবাসীদের বিশ্বাস, করোনা যিনি পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন সেই দেবীকে তুষ্ট করতে পারলে এই রোগ পালাবে ভয়ে! ভারতীয় সংবাদমাধ্যম স্কুপহুপের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

ভারতীয় সময় শনিবার সন্ধ্যায় স্পেনকে টপকে বিশ্বের পঞ্চম সংক্রমিত দেশ হিসেবে উঠে এসেছে ভারতের নাম। শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত সেখানে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ৪১ হাজার ৯৭০ জন। স্পেনে তখন আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২ লাখ ৪০ হাজার ৯৭৮ জন।

করোনার প্রকোপ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে অন্ধবিশ্বাসও। করোনাকে দেবীজ্ঞানে পূজা আরম্ভ করেছে বিভিন্ন রাজ্যের মানুষ। উত্তর দিনাজপুরের রাজগঞ্জের নারীরা রীতিমতো ভক্তিশ্রদ্ধার সঙ্গে গঙ্গাস্নান সেরে করোনা মায়ের উপাসনা করে ৯টি লাড্ডু, ৯টি ফুল, ৯টি লবঙ্গ, ৯টি ধূপকাঠি ধরিয়ে নদীর পাশে গঙ্গার মাটিতে পুঁতে দেন। তাদের এমন ভক্তিশ্রদ্ধা দেখে হতবাক হয়েছেন অনেকেই। আসামেও একই ঘটনা সংঘটিত হয়েছে। স্থানীয় একটি পরিবার দাবি করে তারা স্বপ্নে করোনা প্রতিরোধের ওষুধ পেয়েছে। সে ওষুধ নেওয়ার জন্যে সে বাড়িতে সামাজিক দূরত্ব ছাড়াই মানুষের ভিড় জমতে শুরু করে।

করোনা প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও মাস্ক পরিধান করাসহ বিভিন্ন নিয়ম জারি থাকলেও এসব পূজায় সেসব নিয়মের তোয়াক্কা করা হয়নি।

ভারতে সবচেয়ে বেশি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মহারাষ্ট্রের মানুষ। ওদিকে সক্রিয় করোনা রোগীর হিসাবে এখন দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে রাজধানী দিল্লি। যদিও মোট করোনা আক্রান্তের বিচারে দিল্লির আগে রয়েছে দেশের দক্ষিণের রাজ্য তামিলনাড়ু। আর মৃত্যুর হিসাবে গুজরাট রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে। তৃতীয় স্থানে রয়েছে দিল্লি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এই বিভাগের আরও খবর..

ফেসবুকে আমরা

Facebook Pagelike Widget